শিরোনাম

কোরআন নাযিলের মাস মাহে রমজান

মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান | শনিবার, ২৬ মে ২০১৮ | পড়া হয়েছে 201 বার

কোরআন নাযিলের মাস মাহে রমজান

বছরের শ্রেষ্ঠ মাস মাহে রমজান। এর একমাত্র কারণ হলো এ মাসে ই নাযিল করা হয়েছে মানবজাতীর ইহকালের শান্তি ও পরকালের মুক্তির জন্য প্রেরিত সর্বশেষ আসমানি কিতাব আল কোরআনুল কারিম।

আল্লাহতায়ালা বলেন, রমজান মাস হলো সেই মাস যাতে অবতীর্ণ করা হয়েছে কোরআন। যা মানুষের জন্য হেদায়াত ও সৎ পথের স্পষ্ট নিদর্শন এবং সত্য মিথ্যার পার্থক্যকারী। সুতরাং তোমাদের মধ্যে যারা এ মাস পাবে তারা যেন এ মাসে সিয়াম পালন করে।(সুরা বাকারা-আয়াত ১৮৫)।


কোরআন শরিফ নির্ভুল এক অনন্য কিতাব। আল্লাহতায়ালা বলেন, এ সেই কিতাব যাতে কোন রুপে সন্দেহ নেই।(সুরা বাকারা,আয়াত -২)।

নবী (সা:) কোরআন তেলাওয়াতকে সর্বোত্তম নফল এবাদত উল্লেখ করেছেন। কোরআন তেলাওয়াতের রয়েছে অসংখ্য ফযিলত ও সওয়াব।

কেউ যদি কোরআন শরিফের একটি হরফ পাঠ করে তাহলে দশগুণ নেকি লাভ করবে। রমজান মাসে কোরআন তেলাওয়াতে দশগুণ থেকে একশ গুণ সওয়াব বেশি রয়েছে।

মাহে রমজান হচ্ছে কোরআন নাযিলের মাস। হজরত জিব্রাইল (আ:)রমজান মাসে রাসুল (সা:)কে কোরআন শিক্ষা দিতেন।কোরআন আল্লাহতায়ালার কালাম।
শুধুমাত্র কোরআন শরিফ ই নয় বরং অসংখ্য আসমানি কিতাব এই রমজান মাসে অবতীর্ণ হয়েছে।

রমজানের প্রথম রাতে ইব্রাহিম (আ:)এর উপর সহিফা, ৬ ই রমজান মুসা(আ:)এর উপর তাওরাত, ১৩ই রমজান ঈসা(আ:)এর উপর ইঞ্জিল ও দাউদ (আ:)এর উপর ১৮ই রমজান যবুর কিতাব নাযিল হয়েছে।আর রমজান মাসের ২৭তারিখ লাইলাতুলকদর এ সর্বশেষ আসমানি কিতাব মহাগ্রন্থ আল কোরআনুল কারীম অবতীর্ণ হয়েছে।

তাই আসুন, পবিত্র রমজান মাসে কোরআন তেলাওয়াতে মশগুল থেকে আল্লাহতায়ালার নৈকট্য লাভে মনোনিবেশ করি।

লেখক
মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান
শিক্ষক
জামিয়া কোরআনিয়া সৈয়দা সৈয়দুন্নেছা ও কারিগরী শিক্ষালয়
কাজীপাড়া, ব্রাহ্মণবাড়িয়া।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১