শিরোনাম

“সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ ” র্শীষক প্রচার র্কাযক্রমের আওতায় জনগণকে অবহিতকরণ এবং উন্নয়ন কার্যক্রমে জনসম্পৃক্ততার লক্ষ্যে

কালিসীমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে উন্মুক্ত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়

প্রেস বিজ্ঞপ্তি | রবিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | পড়া হয়েছে 262 বার

কালিসীমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে উন্মুক্ত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়

৭ই ডিসেম্বর/২০১৯ খ্রিঃ।
“সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ ” র্শীষক প্রচার র্কাযক্রমের আওতায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশেষ উদ্যোগ সমূহের ব্র্যান্ডিং , বিভিন্ন ক্ষেত্রে সরকারের অর্জিত সফলতা ও উন্নয়ন ভাবনা, টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্য সমূহ (এস ডি জি), ভিশনঃ ২০২১ এর লক্ষ্য ও অর্জনসমূহ এবং সন্ত্রাসও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ বিষয়ে কালিসীমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে উন্মুক্ত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে জেলা তথ্য অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) দীপক চন্দ্র দাস এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক হুমায়ুন কবির খন্দকার । প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক হুমায়ুন কবির খন্দকার বলেন, রাষ্ট্রের চতুর্থ উপাদান হচ্ছে জনসমষ্টি,এই জনসমষ্টি যদি মাদকাসক্ত হয়ে যায় তবে জাতি মেধাশূন্য হয়ে যাবে ফলে জাতির পিতার সুখি-সমৃদ্ধ সোনার বাঙ্গলা গড়া সম্ভব হবে না।ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে মাদকাসক্তদের সচেতন করতে হবে। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এ এম শামীউল হক চৌধুরী,চেয়ারম্যান,চান্দুরা ইউনিয়ন পরিষদ,বিজয়নগর,নুরুন্নাহার বেগম,প্রধান শিক্ষক,কালিসীমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,নাবিলা আলম,সহকারী শিক্ষক, কালিসীমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,সুইটি বেগম, সহকারী শিক্ষক, কালিসীমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,মোছা মিয়া, সহকারী শিক্ষক, কালিসীমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,বিজয়নগর,,ব্রাহ্মণবাড়িয়া,এছাড়া অনেক গণমান্য ব্যক্তি এবং বিভিন্ন শ্রেণিপেশার নারী উপস্থিত ছিলেন। উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা তথ্য অফিসার(ভারপ্রাপ্ত), দীপক চন্দ্র দাস এবং বলেন, -র্স্মাট সীমান্ত ব্যবস্থাপনা,প্রতিকারমূলক ব্যবস্থা এবং প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থার মাধ্যমে মাদক নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব এই ক্ষেত্রে মাদকদ্রব্যের উৎপাদন ও আমদানি নিষিদ্ধকরণের লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর সাথে সমন্বিত র্কাযক্রম গ্রহণ করে প্রতিরোধ ব্যবস্থা জোরদার করা প্রয়োজন।মাদকদ্রব্যের অপব্যবহারজনিত সমস্যা আজ বিশ্বব্যাপী। লাভজনক এ ব্যবসাকে কেন্দ্র করে আন্তর্জাতিক চোরাচালানী চক্র গড়ে উঠেছে।বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ প্রজম্মকে এ ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষার জন্য মাদকাসক্তি নিরাময় ও প্রতিরোধ আন্দোলনে আপামর জনসাধারণকে এগিয়ে আসতে হবে ।এর পূর্বশর্ত হিসেবে ধূমপান ও মাদকবিরোধী আন্দোলনকে বেগবান করতে হবে ।সরকারি মহল থেকে শুরু করে গণমাধ্যম,রাজনীতিবিদ,কূটনীতিবিদ,বুদ্ধিজীবী,আইনজীবী,সমাজকর্মী,সমাজবিজ্ঞানী,অর্থনীতিবিদসহ সকল শ্রেণীর মানুষের সক্রিয় অংশগ্রহণপূর্বক মাদকমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তুলে এ বাংলাদেশকে সবার বাস-উপযোগী করে তুলতে হবে। তিনি তার বক্তব্যে আরো বলেন, শিশু মৃত্যুর হার ও মাতৃমুত্যুর হার হ্রাসে এমডিজি পুরস্কার ২০১০ সালে প্রধানমন্ত্রী অর্জন করেন,আমরা ২০২১সালে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালে উন্নতদেশে পরিনত হবো এবং অর্থনৈতিক সাফল্যসূচক বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন এবং দেশ ও জনগণের স্বার্থে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য পেশ করেন । এবং অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিক পরিসমাপ্তি ঘোষণা করেন।

(দীপক চন্দ্র দাস )
জেলা তথ্য অফিসার (ভারপ্রাপ্ত)
ব্রাহ্মণবাড়িয়া।


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১