শিরোনাম

রহিজ মিয়া ও ফয়েজ মিয়ার হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার দাবিতে

কসবায় এলাকাবাসীর মানববন্ধন

কসবা প্রতিনিধি | শুক্রবার, ১৯ মার্চ ২০২১ | পড়া হয়েছে 170 বার

কসবায় এলাকাবাসীর মানববন্ধন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়নের নিমবাড়ি গ্রামের দুই ভাই রহিজ মিয়া ও ফয়েজ মিয়ার হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার সকালে নিমবাড়ি ও শ্যামবাড়ি গ্রামের রাস্তায় এলাকাবাসীর উদ্যোগে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। ফয়েজ মিয়াকে গত ১৩ মার্চ শনিবার সকালে এবং রহিজ মিয়াকে ২০১৭ সালের ১০ এপ্রিল হত্যা করা হয়।


মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন নিহত ফয়েজ মিয়ার স্ত্রী ও হত্যা মামলার বাদি রেখা বেগম, কন্যা ইভা, নিমবাড়ি গ্রামের বাবুল মিয়া, নোয়াব মিয়া, তাজুল ইসলাম, মস্তু মিয়া প্রমুখ।

মানববন্ধনে নিহত ফয়েজ মিয়ার চাচাতো ভাই বাবুল মিয়া বলেন, নিমবাড়ি গ্রামের পান্ডুর গোষ্ঠীর লোকজনের সাথে এই এলাকার কাবিলা গোষ্ঠীর লোকজনের মধ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছিলো।

এসব বিরোধের জের ধরে ২০১৭ সালের ১০ এপ্রিল দুই গোষ্ঠীর লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে পান্ডুর গোষ্ঠীর লাবু মিয়ার ছেলে রহিজ মিয়া খুন হন। এ ঘটনায় নিহত রহিজ মিয়ার স্ত্রী বাদি হয়ে ২০জনের বিরুদ্ধে কসবা থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। এই মামলায় ১ নং স্বাক্ষী ছিলেন নিহতের বড় ভাই ফয়েজ মিয়া।

এদিকে রহিজ মিয়া হত্যা মামলার আসামীরা (কাবিলা গোষ্ঠীর) দীর্ঘদিন কারাভোগ করে মাস দুয়েক আগে আদালত থেকে জামিন পেয়ে বাড়িতে আসেন। এরপর থেকে আসামীরা রহিজ মিয়া হত্যা মামলাটি প্রত্যাহারের জন্য পান্ডুর গোষ্ঠীর লোকজনের উপর চাপ প্রয়োগ করেন।

পান্ডুর গোষ্ঠীর লোকজন রাজী না হওয়ায় গত ১৩ মার্চ শনিবার সকালে কাবিলা গোষ্ঠীর লোকজন দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে পান্ডুর গোষ্ঠীর লোকজনের বাড়িতে হামলা করে। এ সময় টেটার আঘাতে রহিজ মিয়া হত্যা মামলার ১ নং স্বাক্ষী ও রহিজ মিয়ার বড় ভাই ফয়েজ মিয়া-(৬০) ঘটনাস্থলেই নিহত হন। পরে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে কমপক্ষে ২০জন আহত হন।

নিহত ফয়েজ মিয়ার স্ত্রী রেখা আক্তার বলেন, আমি আমার স্বামী ও দেবর হত্যার বিচার চাই। কাবিলা গোষ্ঠীর লোকজন আমার স্বামী ও দেবরকে খুন করেছে।

এ ব্যাপারে কসবা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আলমগীর ভূঞা বলেন, মানববন্ধনের বিষয়টি আমার জানা নেই। তিনি বলেন, ফয়েজ মিয়া হত্যা ঘটনায় নিহতের স্ত্রী রেখা বেগম বাদি হয়ে ৩০জনের বিরুদ্ধে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ ইতিমধ্যেই মামলার এক আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে। বাকীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১