শিরোনাম

ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্য আন্তর্জাতিক সম্পর্কের ক্ষতি করবে : বিএনপির মহাসচিব

বিশেষ প্রতিনিধি : | বৃহস্পতিবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৮ | পড়া হয়েছে 110 বার

ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্য আন্তর্জাতিক সম্পর্কের ক্ষতি করবে : বিএনপির মহাসচিব

ভারত বাংলাদেশের নির্বাচনে কোনো হস্তক্ষেপ করবে না’ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এ বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, কে তাকে এমন কথা বলার অধিকার দিয়েছে? এ ধরনের কথা আন্তর্জাতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে বড় ধরনের ক্ষতি করবে।

আজ বৃহস্পতিবার (২৬.০৪.২০১৮) বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় একথা বলেন তিনি।


ভারতের পক্ষ হয়ে কথা বলার অধিকার তো তাকে (ওবায়দুল কাদের) কেউ দেয়নি উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, তাকে কি ভারত দায়িত্ব দিয়েছে একথা বলার? এ দায়িত্ব তিনি কার কাছ থেকে পেলেন? ভারতের পক্ষ হয়ে তিনি বললেন যে, ভারত বাংলাদেশের নির্বাচনে কোনো হস্তক্ষেপ করবে না। আমার কাছে মনে হয়েছে এ ধরনের কথা বলায় আন্তর্জাতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে বড় ধরনের ক্ষতি হবে। কারণ, ভারতের পক্ষ হয়ে কথা বলার অধিকার তো তাকে কেউ দেয়নি। তিনি যে কথা বলেছেন তাতে গোটা বাংলাদেশর মানুষের মধ্যে অনেক প্রশ্নের উদ্রেক হয়েছে। আমরা মনে করি ভারত আমাদের সবচেয়ে নিকট বন্ধু রাষ্ট্র। মুক্তিযুদ্ধের সময় তাদের ভূমিকা আমরা সব সময় শুধু স্বীকারই করি না শ্রদ্ধার সাথে স্মরণও করি। আমরা মনে করি তাদের সাথে সম্পর্ক বজায় রাখা বাংলাদেশের জন্য সবচেয়ে প্রয়োজনীয়।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফের বক্তব্যের দিকে ইঙ্গিত করে মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ আজীবন ক্ষমতায় থাকুক আমরা খুব খুশি হবো। কিন্তু তারা যেন জনগণের ভোটে ক্ষমতায় আসেন। জনগণ ভোট দিক, সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে আপনারা ক্ষমতায় আসেন; আমাদের কারও আপত্তি নেই।

কেন, কী কারণে আজকে দেশনেত্রীকে কারাগারে আটকে রেখেছেন প্রশ্ন করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, মাত্র ২ কোটি ৩৩ লাখ টাকার একটা মিথ্যা বানোয়াট মামলায়, যে টাকা একটিও খরচ হয়নি। তিনগুণ টাকা এখনও ব্যাংকে জমা আছে। একটি মাত্র কারণে তাকে আটকে রেখেছেন। কারণ, আপনারা জানেন দেশনেত্রী খালেদা জিয়া বাইরে থাকলে আগামী কোনো নির্বাচনে আপনাদের জয়লাভ করার সম্ভাবনা নেই।

তারেক রহমানের নাগরিকত্ব নিয়ে যে আলোচনা চলছে তাকে একটি ডেড ইস্যু দাবি করে মহাসচিব বলেন, এটা নিয়ে আলোচনা করার কিছু নেই। পাসপোর্টের সাথে নাগরিকত্বের যে কোনো সম্পর্ক নেই সেটা সবাই ভালো করেই জানেন। তাই আশা করবো এটা নিয়ে আর কেউ কোনো আলোচনা করে সময় নষ্ট করবেন না।

সম্মিলিত বৌদ্ধ পরিষদ আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক ডা. দিলীপ বড়ুয়া।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. সুকোমল বড়ুয়া, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান কল্যাণ ফ্রন্টের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট গৌতম চক্রবর্তী, বিএনপির সহ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক দীপেন দেওয়ান, অমলেন্দু দাস অপু প্রমুখ।

উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান।

সূত্র : সমকাল

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১