শিরোনাম

বিজয় দিবসকে সামনে রেখে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মুক্তিযুদ্ধের অরক্ষিত স্মৃতিচিহ্ন সংরক্ষণের কাজ শুরু

এসব স্মৃতি চিহ্ন সংরক্ষণ করার জন্যে কাউকে না কাউকে এগিয়ে আসতে হবে

ষ্টাফ রিপোর্টার : | শুক্রবার, ২৬ অক্টোবর ২০১৮ | পড়া হয়েছে 92 বার

এসব স্মৃতি চিহ্ন সংরক্ষণ করার জন্যে কাউকে না কাউকে এগিয়ে আসতে হবে

আগামী ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসকে সামনে রেখে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মুক্তিযুদ্ধের অরক্ষিত স্মৃতি চিহ্নগুলো সংরক্ষণের কাজ শুরু করেছেন নবাগত জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ -দৌলা খান। গতকাল ২৫ অক্টোবর বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে তিনি পৌর এলাকার পুনিয়াউটে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড বিতরণ বিভাগ (ওয়াপদা) কম্পাউন্ডে ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন পাকিস্তানী সেনাদের টর্চার ক্যাম্প ও ব্যাংকারটি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে সংস্কারের মাধ্যমে সংরক্ষণের কাজ শুরু করেন। মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের লোকদের ধরে নিয়ে ওই ক্যাম্পে নির্যাতন করা হতো।

এ সময় জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খান উপস্থিত সাংবাদিকদেরকে বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় এখানে পাকিস্তানী সেনাদের নির্যাতনের ঘটনা অনেকেই স্বচক্ষে দেখেছেন। এসব স্মৃতি চিহ্ন সংরক্ষণ করার জন্যে কাউকে না কাউকে এগিয়ে আসতে হবে। তিনি বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানী সেনারা আমাদের দেশে যে বর্বর এবং জঘন্যতম হত্যাকান্ড চালিয়েছিলো এগুলো হলো সেই নিদর্শন। নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানানোর জন্যেই আমাদের এই প্রয়াস।


এ সময় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মুক্তিযুদ্ধের গবেষক কবি জয়দুল হোসেন বলেন, দীর্ঘদিন ধরে মুক্তিযুদ্ধের স্থাপনা গুলো অরক্ষিত ছিলো। নবাগত জেলা প্রশাসক মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচিহ্ন গুলো সংরক্ষণের উদ্যোগ গ্রহণ করায় আমরা তাকে ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানাই। এ সময় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ সামছুজ্জামানসহ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০