শিরোনাম

সলিমগঞ্জ ইউনিয়ন পরিবার কল্যাণ ও উপস্বাস্থ্যকেন্দ্র

এক মাস জলাবদ্ধ

বাঞ্ছারামপুর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি : | মঙ্গলবার, ০৩ অক্টোবর ২০১৭ | পড়া হয়েছে 301 বার

বৃষ্টির পানি জমে জেলার নবীনগর উপজেলার সলিমগঞ্জ ইউনিয়ন পরিবার প্ররিকল্পনা এবং ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। এতে এক মাস ধরে এসব কেন্দ্রে চিকিৎসা নিতে এসে রোগীরা দুর্ভোগ পোহাচ্ছে।
নবীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্র সূত্রে জানা যায়, নবীনগর উপজেলা থেকে ২০ কিলোমিটার দূরে সলিমগঞ্জ ইউনিয়নের সলিমগঞ্জ বাজারে ১৯৮৪ সালে কেন্দ্র দু’টি প্রতিষ্ঠিত হয়। এতে ওই ইউনিয়নের ১০টি গ্রামসহ পাশের বাঞ্ছারামপুর উপজেলা, নরসিংদী সদর ও রায়পুর উপজেলার ৫০ হাজার মানুষ চিকিৎসাসেবা নেয়। এক মাস ধরে বৃষ্টিতে কেন্দ্র দু’টির প্রবেশের সড়কে এবং ভেতরে পানি জমে রয়েছে।
বাঞ্ছারামপুর-সলিগঞ্জ-নবীনগর সড়কটি উঁচু হওয়ায় বৃষ্টির পানি কেন্দ্র দু’টির পাশের সড়কে গিয়ে জমে থাকে। এ ছাাড় কেন্দ্র দু’টির ভেতরের আঙিনা নিচু হওয়ায় সেখানেও বৃষ্টির পানি জমে থাকে।
নবীনগর উপজেলা ভারপ্রাপ্ত স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সায়মুল হুদা বলেন, কেন্দ্র দু’টির ভেতরের অংশ (আঙিনা) তুলনামূলকভাবে গভীর। আর এই কারণে নালা নির্মাণ করে পানি সরানো সম্ভব নয়। সমস্যা সমাধানের জন্য এটি ভরাট করতে হবে। বিষয়টি গত বৃহস্পতিবার উপজেলার সমন্বয় কমিটির সভায় সলিমগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম আলোচনা করেছেন এবং সভায় রেজল্যুশন আকারে পাস হয়েছে। ওই আঙিনা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বালু ফেলে ভরাট করা হবে।
সলিমগঞ্জ বাজারে গিয়ে দেখা যায়, দু’টি কেন্দ্রে ঢোকার একমাত্র সড়কে ও আঙিনায় পানি জমে আছে। কেন্দ্রের ভেতরে অন্তত এক ফুট পানি। এ পরিস্থিতিতে রোগীদের পানি মাড়িয়ে চিকিৎনা নিতে হচ্ছে। দীর্ঘদিন জমে থাকায় পানি দূষিত হয়ে পচা গন্ধ ছড়াচ্ছে।
বড়াইল গ্রামের সুফিয়া বেগম বলেন, ‘শীরের সমস্যা লইয়া ৪-৫ দিন আগে হাসপাতালে আইছিলাম। অহন আইছি আবার পা চুলকানির ওষুধের লাইগা। হাসপাতালের পানি পাড়াইয়া আমার পা চুলকাইতাছে।’
সলিমগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী তানভীর সিকদার বলেন, সলিমগঞ্জ ইউনিয়ন পরিবার পরিকল্পনা এবং উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রে প্রবেশের একমাত্র সড়কে বর্ষাকালে বৃষ্টির পানি জমে থাকে। কেন্দ্র দু’টির ভেতরেও এক থেকে দেড় ফুট পানি জমে থাকে। সমস্যা দীর্ঘদিনের হলেও কেউ তা সমাধান করেনি।
ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রের উপসহকারী কমিউনিটি কর্মকর্তা জানান, ‘আমি ছয় মাস আগে সলিমগঞ্জে এসেছি। প্রায় এক মাস ধরে স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ভেতরে এবং প্রবেশ সড়কে পানি জমে রয়েছে। পানি জমে থাকার বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। এই স্বাস্থ্যকেন্দ্রে প্রতিদিন নবীনগর, বাঞ্ছারামপুর, নরসিংদী সদর ও রায়পুর উপজেরার প্রায় ২০০ মানুষ নানা রোগের চিকিৎসা নেয়। এখন জলাবদ্ধ থাকায় রোগীর সংখ্যাও কমে গেছে।’
এ বিষয়ে সিভিল সার্জন নিতিশ নন্দী মজুমদার বলেন, ‘সলিমগঞ্জ ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রের ভেতরে জলাবদ্ধতা একটি স্থায়ী সমস্যা। ড্রেনেজ ব্যবস্থার মাধ্যমে এ সমস্যার সমাধান সম্ভব নয়। আমরা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের সঙ্গে এই সমস্যা নিয়ে কথা বলেছি। ইউপির কোনো বরাদ্দ নিয়ে এ সমস্যা সমাধান করা যেতে পারে।’


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০