শিরোনাম

এক আসনেই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রার্থী ২ ডজন

নবীনগর প্রতিনিধি : | বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮ | পড়া হয়েছে 244 বার

এক আসনেই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রার্থী ২ ডজন

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) আসন থেকে ২৩ জন প্রার্থী আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম কিনে ২২ জন জমা দিয়েছেন। গত ৯ থেকে ১১ নভেম্বর পর্যন্ত ঢাকার ধানমিন্ডস্থ আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয় থেকে তারা মনোনয়ন ফরম কিনে ১২ নভেম্বর জমাদেন।

প্রায় দুই ডজন মনোনয়ন প্রার্থী নিয়ে বিব্রত জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ। তবে, এদের মধ্যে কেবল চার-পাঁচজন প্রার্থীকেই আমলে নিচ্ছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা। বাকিদের ‘ডামি প্রার্থী’ হিসেবে মনে করছেন তারা।


খোঁজ নিয়ে জানা যায়, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর গত ৯ নভেম্বর থেকে দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। গত রবিবার পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) আসনের জন্য আওয়ামী লীগের দলীয় ২৩ জন প্রার্থী মনোনয়ন ফরম কিনেন। এর মধ্যে একজন বর্তমান সংসদ সদস্য ফয়জুর রহমান বাদল ব্যতিত অপর সবাই সোমবার জমাও দিয়েছেন। এরা হলেন: কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের উপদেষ্টা এবাদুল করিম বুলবুল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাংগঠণিক সম্পাদক কাজী মোর্শেদ হোসেন কামাল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও যুবলীগ নেতা এ কে এম মমিনুল হক সাঈদ, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সমবায় ও স্বনির্ভরতা বিষয়ক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম, নবীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নিয়াজ মোহাম্মদ খান, সাংগঠণিক সম্পাদক মো. শফিকুল ইসলাম, সদস্য জাকির হোসেন, মো. সাঈফুর রহমান, কবির আহমেদ ভূঁইয়া ও মো. হেলাল উদ্দিন, সাবেক সদস্য এডভোকেট খোরশেদ আলম, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আরিফুল ইসলাম টিপু, নবীনগর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক নুরুন্নাহার বেগম, যুগ্ম আহ্বায়ক মাহমুদা আক্তার শিউলি, ইতালি ও সুইডেন প্রবাসী বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি সিরাজুল হক রানা, আওয়ামী লীগ সমর্থক খন্দকার এনামুল নাছির, আলামিনুল হক ও মাঈন উদ্দিন আহমেদ, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য গোলাম জাকারিয়া, রসুল্লাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য শেখ আবুল হোসেন, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সহ-সম্পাদক জহির উদ্দিন সিদ্দিক টিটু এবং আওয়ামী সাংস্কৃতিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা মুত্তাকিমা।

তবে এসব প্রার্থীর মধ্যে কৃষক লীগের উপদেষ্টা বুলবুল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাংগঠণিক সম্পাদক মোর্শেদ হোসেন কামাল ও যুবলীগ নেতা সাঈদ ছাড়া বাকিদের কাউকেই আমলে নিচ্ছে না উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা। দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় অনুপস্থিত থাকা এসব প্রার্থীদের ডামি প্রার্থী হিসেবে আখ্যায়িত করছেন তারা।

এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও নবীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য শিব শঙ্কর দাস এ বিষয়ে বলেন, এত প্রার্থী নিয়ে আমরা কিছুটা বিব্রত। তবে নির্বাচনী মাঠ গরম করার ক্ষমতা দু-চারজন ছাড়া কারও নেই। বাকি প্রার্থীদের আমরা সেভাবে আমলেও (গ্রহণযোগ্যতায়) নিচ্ছি না।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০