শিরোনাম

ইসলামে জ্ঞান অর্জনের গুরুত্ব অপরিসীম

| রবিবার, ২০ ডিসেম্বর ২০২০ | পড়া হয়েছে 121 বার

ইসলামে জ্ঞান অর্জনের গুরুত্ব অপরিসীম

ইসলাম প্রচার প্রসার, রাষ্ট্র ও প্রশাসনের কর্মকান্ড সুচারুরুপে পরিচালনার জন্য শিক্ষা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। রাসুল (সাঃ) শিক্ষার বিষয়ে অত্যন্ত গুরুত্ব প্রদান করতেন। এ বিষয়ে বিশেষ বিশেষ সাহাবাদের বিশেষ বিশেষ দায়িত্বে নিয়োজিত করে রাখা হয়েছিল।

তৎকালীন আরব ভূমিতে শিক্ষার তেমন প্রচলন ছিল না। শিক্ষিত লোকজনের সংখ্যা ছিলএকেবারেই নগণ্য। হুজুর (সাঃ) তাদেরকে শিক্ষার প্রতি উৎসাহিত করতে গিয়ে বলেছেন, প্রতিটি মুসলিম নরনারীর জন্য জ্ঞান অর্জন করা ফরজ। রাসুলুল্লাহ (সাঃ) মানুষকে দোলনা থেকে করব পর্যন্ত জ্ঞান অর্জন করতে উপদেশ দিয়েছেন।
জ্ঞানী ব্যক্তির মর্যাদা উল্লেখ করতে গিয়ে রাসুল (সাঃ) এরশাদ করে বলেন, “শিক্ষানবিশদের সম্মানার্থে ফেরেশতারা তাদের ডানার গালিচা বিছিয়ে দেয় “।
একবার হুজুর (সাঃ) এরশাদ করেন, জ্ঞানী ব্যক্তির মর্যাদা এবাদতকারী ব্যক্তির এতটুকু উচ্চে, যতটুকু আমার মর্যাদা তোমাদের ( সাহাবাদের) একজন সাধারণ ব্যক্তির উপর।
এমনকি বদর যুদ্ধে যে সকল মুশরিকরা গ্রেফতার হয়ে মুসলমানদের হাতে বন্দী হয়েছিল তাদের মধ্যে অনেকের মুক্তিপণ ছিল দশজন মানুষকে স্বাক্ষর জ্ঞানদান।


শিক্ষা বিস্তারে হুজুর (সাঃ) এর বহুমুখী প্রচেষ্টা ও কর্মসূচী প্রনয়ণের মাধ্যমে অল্প দিনের মধ্যেই তদানীন্তন বিশ্বে শিক্ষার এক মহা বিপ্লবের সূচনা হয়।
বর্বর জাতি হয়ে উঠে বিশ্বের দরবারে একটি আদর্শ ও অনুসরণীয় সম্প্রদায়।
কারণ হুজুর (সাঃ) তৎকালীন মানুষদের শিক্ষায় শিক্ষিত করে একটি উত্তম চরিত্রের সোনার মানুষে পরিনত করতে পেরেছেন।
একসময় যেই মানুষ গুলো ছিল অন্ধকার যুগের সর্ব নিকৃষ্ট, শিক্ষা লাভের পর তারাই গড়ে তুললো সোনালী যুগের সূচনা।

মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান
যুগ্ম সম্পাদক
ইসলামী ঐক্যজোট
ব্রাক্ষণবাড়ীয়া জেলা।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০