শিরোনাম

ইসলামের দৃষ্টিতে সালাম

| রবিবার, ৩০ জুন ২০১৯ | পড়া হয়েছে 319 বার

ইসলামের দৃষ্টিতে সালাম

ইসলাম পরিপূর্ণ মানব কল্যাণকর একটি পূর্ণাঙ্গ জীবন ব্যবস্থা। মানব জীবনের সকল কাজকর্মে ইসলাম সঠিক দিকনির্দেশনা প্রদান করেছে।মানবসমাজে সহমর্মিতা ও ভালবাসা সৃষ্টি করার উদ্দেশ্যে ইসলাম যেসমস্ত আচরণবিধির নির্দেশনা প্রদান করেছে ‘সালাম ও মুসাফাহ ‘ তার মধ্যে অন্যতম।

সালাম শব্দের অর্থ শান্তি। ইসলামের পরিভাষায় সালাম হচ্ছে এক বিশেষ দোয়া।যা একজন আরেকজনের সাথে সাক্ষাতকালে অভিবাদন হিসাবে বিনিময় হয়ে থাকে।


ইসলাম পূর্ব আরবসমাজে অভিবাদন জানানোর জন্য ও তারা এমন কিছু বাক্য ব্যবহার করতো যা সালামের মতো এমন সুন্দর অর্থবহ ছিলনা। কিন্তু রাসুল( সা:) তাদের অর্থহীন বাক্য পরিহার করে ‘ আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ ‘ এর প্রচলন শুরু করেন।

আল্লাহতায়ালা ও পবিত্র কোরআন শরিফে মুমিনদেরকে সালাম দেওয়ার নির্দেশ প্রদান করেছেন। সুরা আনআমের ৫৪ নং আয়াতে আল্লাহ তায়ালা মোহাম্মদ ( সা:) কে লক্ষ্য করে এরশাদ করেন, যারা আমার আয়াতের উপর বিশ্বাস আনয়ন করে তারা যখন আপনার নিকট আসবে আপনি তখন তাদের বলুন সালামুন আলাইকুম।

বিশ্বনবী মোহাম্মদ ( সা:) ও সালাম প্রদানের বিষয়ে অত্যধিক গুরুত্ব প্রদান করেছেন।
হজরত আনাস ( রা:) বলেন, রাসুল ( সা:) আমাকে বলেছেন, তুমি যখন তোমার গৃহে পরিবার পরিজনদের নিকট গমন করিবে তুমি তখন তাদের সালাম করবে।তাহলে এ সালাম তুমার এবং তুমার পরিবারদের জন্য বরকতের কারণ হবে( তিরমিজি শরিফ)।

অন্য এক হাদিসে হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ( রা:) বলেন, রাসুল ( সা:) এরশাদ করেছেন, যে ব্যক্তি আগে সালাম প্রদান করবে সে অহংকার মুক্ত ( মিশকাত শরিফ)।

কিন্তু আজ যদি আমাদের সমাজের দিকে চোখ বুলাই তাহলে দেখা যাবে মুসলিম সমাজ আজ তাদের প্রভু ও নবী প্রদত্ত নিজ ঐতিহ্য বিসর্জন দিয়ে অন্য ধর্মাবলম্বিদের কৃষ্টি কালচার অনুসরণ করে চলছে। মুসলিম জাতি আজ সালাম দেওয়া ভুলে গেছে। সালাম প্রদানের পরিবর্তে হাত নেড়ে অভিবাদন জাচ্ছে।

আল্লাহতায়ালা আমাদের সকলে সালাম প্রচার প্রসার ঘটানোর তাওফিক দান করুণ।
(মুফতী মোহাম্মদ এনামুল হাসান)

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১