শিরোনাম

ইতিহাসে বাংলাদেশ কখনোই স্বাধীন ছিল না : সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব হাসান আরিফ

স্টাফ রিপোর্টার : | মঙ্গলবার, ১৭ এপ্রিল ২০১৮ | পড়া হয়েছে 130 বার

ইতিহাসে বাংলাদেশ কখনোই স্বাধীন ছিল না : সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব হাসান আরিফ

সাহিত্য একাডেমি আয়োজিত বৈশাখী উৎসবের আজ মঙ্গলবার (১৭.০৪.২০১৮) ৫ম দিন ছিল। মুক্তিযুদ্ধ- বিষয়ক লেখক সম্মাননা’র প্রধান অতিথি সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব হাসান আরিফ বলেন, ইতিহাসে বাংলাদেশ কখনোই স্বাধীন ছিল না। ১৯৭১ সালে একমাত্র বঙ্গবন্ধুর হাত ধরেই বাঙালিরা প্রথম স্বাধীনতা অর্জন করে। স্বাধীনতার পূর্বে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সংস্কৃতি অঙ্গন কোনরূপ আঘাতপ্রাপ্ত হতে দেখিনি। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় যখন মৌলবাদীদের দ্বারা এই স্বাধীন দেশে আলাউদ্দিন সঙ্গীতাঙ্গণসহ অন্যান্য সাংস্কৃতিক অঙ্গন আঘাতপ্রাপ্ত হন। বৈশাখী উৎসব তথা বাঙালি সংস্কৃতি আমাদের প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দিতে হবে। মনে প্রাণে সংস্কৃতিকে ধারণ করতে হবে। আমি অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশকে বাঁচিয়ে রাখার সংগ্রাম করছি। বাংলাদেশকে বাঁচিয়ে রাখতেই হবে।

বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রফেসর ড. মোঃ মাহবুবুল আরফিন, নাজমুল হাসান পাখি, ডাঃ অরুনাভ পোদ্দার, কমরেড নজরুল ইসলাম, ফজিলাতুন নাহার।


মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক লেখক সম্মাননা প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধারা হলেন এডঃ হাবিবুর রহমান-১, শামসুদ্দিন আহাম্মদ, এডঃ আবদুর রাশেদ ও মোঃ শফিকুর রহমান।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন পরিমল ভৌমিক।

শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন হাবিবুর রহমান পারভেজ।

সূচনাপর্বে জাতীয় রবীন্দ্র সঙ্গীত সম্মিলন পরিষদ ব্রাহ্মণবাড়িয়া শাখার শিল্পীবৃন্দ গান পরিবেশন করেন। আলোচনা পর্বে সভাপতিত্ব করেন কবি মজিবুল বার্ ীচিনাইর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কলেজ নাট্যচক্র প্রযোজনা “মুজিব মানে মুক্তি” নাটক মঞ্চস্থ হয়। সবশেষে সাহিত্য একাডেমি, তিতাস ললিত কলা একাডেমি ও পার্থ সারতি গুহ সাংস্কৃতিক পরিবেশন করেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন সাইফুল ইসলাম রিপন।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১