শিরোনাম

ইতিহাসের তৃতীয় বড় জয় ভারতের

স্পোর্টস ডেস্ক : | সোমবার, ২৯ অক্টোবর ২০১৮ | পড়া হয়েছে 152 বার

ইতিহাসের তৃতীয় বড় জয় ভারতের

সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল ওয়ানডে ইতিহাসের সবচেয়ে বড় জয়ের। তা হতে দেননি ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডার। তবে ভারতের ওয়ানডে ইতিহাসের তৃতীয় বৃহত্তম জয় থেকে ক্যারিবীয় অধিনায়ক বঞ্চিত করতে পারেননি।

রোহিত শর্মা ও আম্বাতি রাইডুর সেঞ্চুরিতে ৩৭৭ রানের পাহাড় দাঁড় করায় ভারত। পরে খলিল আহমেদ ও কুলদ্বীপ যাদভের বোলিংয়ে ১৫৩ রানেই অলআউট করে দেয় সফরকারীদের। ২২৪ রানের জয়ে চার ম্যাচ শেষে সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে গিয়েছে ভারত।


রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। চলতি সিরিজে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা শাই হোপ এবং ওপেনার কিরন পাওয়েল কাটা পড়েন রানআউটে। মাত্র ২০ রানেই সাজঘরে ফিরে যায় প্রথম তিন ব্যাটসম্যান।

উপরের সারির ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার ভীড়ে ক্যারিয়ারের সপ্তম হাফসেঞ্চুরি করেন হোল্ডার। ১ চার ও ২ ছক্কার মারে ৫৪ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। এছাড়া কেমো পল ১৯ ও মারলন স্যামুয়েলস করেন ১৮ রান।

ভারতের পক্ষে ৩টি করে উইকেট নেন খলিল আহমেদ ও কুলদ্বীপ যাদভ। অন্য দুই উইকেট নেন রবিন্দ্র জাদেজা ও জাসপ্রিত বুমরাহ।

এর আগে টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে রোহিত শর্মা খেলেন ১৬২ রানের দুর্ধর্ষ ইনিংস। তার সাথে আম্বাতি রাইডু দায়িত্বশীল সেঞ্চুরি করলে ভারতের সংগ্রহ গিয়ে ঠেকে ৩৭৭ রানে।

সিরিজের প্রথম ম্যাচে রোহিত খেলেছিলেন ১৫২ রানের অপরাজিত ইনিংস। যা ছিলো তার ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ ১৫০+ রানের ইনিংস। ওয়ানডে ইতিহাসে ছয়টি ১৫০+ রানের ইনিংস খেলার রেকর্ড নেই আর কারও। এই রেকর্ডকে আরও এক ধাপ বাড়িয়ে নিয়েছেন হিটম্যান খ্যাত এ ব্যাটসম্যান।

ক্যারিয়ারের সপ্তম দেড় শতাধিক ইনিংসটি খেলার পথে রোহিত সম্ভাবনা জাগিয়েছিলেন চতুর্থ ডাবল সেঞ্চুরির। কিন্তু অ্যাশলে নার্সের সাদামাটা এক ডেলিভারিতে উইকেট বিলিয়ে আসায় ১৬২ রানেই থেমে যায় তার ইনিংস। মাত্র ১৩৭ বলের ইনিংসে ২০টি চার ও ৪টি ছক্কা হাঁকান ডানহাতি এ ওপেনার ১৬২ রান করে।

এ ম্যাচে ব্যাট হাতে ব্যর্থ হয়েছেন আগের তিন ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ার বিরাট কোহলি, করেছেন মাত্র ১৬ রান। ওপেনার শিখর ধাওয়ানের ব্যাট থেকে আসে ৩৮ রান। তবে তৃতীয় উইকেটে রোহিতকে যোগ্য সঙ্গ দেন আম্বাতি রাইডু। মাত্র ১৮৪ বলে ২৪৩ রানের জুটি গড়েন রাইডু ও রোহিত।

ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরিতে মাত্র ৮১ বলে ১০০ রান করেই ফেরেন রাইডু। তার ইনিংসে ছিল ৮টি চার ও ৪টি ছক্কার মার। শেষ দিকে মহেন্দ্র সিং ধোনি ১৫ বলে ২৩, কেদার যাদভ ৭ বলে ১৬ ও রবিন্দ্র জাদেজা ৪ বলে ৭ রানের ইনিংস খেললে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩৭৭ রানে থামে ভারতের ইনিংস।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১