শিরোনাম

আশুগঞ্জ সার কারখানা থেকে ৭ জেলায় সার উত্তোলন শুরু

প্রতিনিধি আশুগঞ্জ ; | শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০১৬ | পড়া হয়েছে 348 বার

আশুগঞ্জ সার কারখানা থেকে ৭ জেলায় সার উত্তোলন শুরু

মহা-ব্যবস্থাপক (বানিজ্যিক)কে প্রত্যাহারের আশ্বাস, ভাল মানের সার সরবরাহ ও সঠিক ওজনে সার সরবরাহের আশ্বাসে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ সার কারখানা থেকে ৭জেলায় সার উত্তোলন শুরু করেছে  ডিলাররা। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সার কারখানায় বিসিআইসি কতৃপর্ক্ষ ও জেলা সার সমিতির নেতৃবৃন্দের সাথে বৈঠকে এ সিদ্ধান্তের পর সার উত্তোলন শুরু করে ডিলাররা। বৈঠকে বিসিআইসির পরিচালক (কারিগরি) মোঃ আলী আক্কাস, আশুগঞ্জ সার কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক এস. এস. কামরান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সার সমিতির সভাপতি রুহুল আমিন ভূইয়া, সাধারন সম্পাদক জালাল উদ্দিনসহ কারখানা কতৃপর্ক্ষ ও ডিলাররা উপস্থিত ছিলেন।
সার ডিলাররা জানান, বিগত ২০১১- ২০১২ অর্থ বছর থেকে শুরু হয়ে ২০১৫-২০১৬ অর্থ বছর পর্যন্ত বিভিন্ন দেশ থেকে ইউরিয়া সার আমদানি করা হয়। আমদানি করা এই সার এবং কারখানার নিজস্ব উৎপাদিত সার তালিকাভুক্ত ব্রাক্ষণবাড়িয়াসহ ৭ জেলার ডিলারদের মাঝে সরবরাহ করা হয়। আমদানিকৃত ইউরিয়া সারের বস্তায় (প্রতি বস্তা ৫০ কেজি) থাকার কথা থাকলেও প্রতি বস্তায় ১০ থেকে ১৫ কেজি সার ওজনে কম পাওয়া যাওয়ায়। এবং নি¤œ মানের সার সরবরাহ করা হচ্ছে। অনেক সারের বস্তায় জমাট বেধে শক্ত হয়ে গুনগত মান নষ্ট হয়ে গেছে। আর এসব কারখানার মহাব্যবস্থাপক (বানিজ্যিক) হাবিবুর রহমান উৎকোচ গ্রহন করে পরিবহন ঠিকাদারের কাছ থেকে বুঝে নেন এবং ডিলাদের মাঝে সরবরাহ করেন। বিষয়টি মন্ত্রনালয়, বিসিআইসি ও কারখানা কতৃপর্ক্ষকে বারবার অবহিত করা পর কতৃপর্ক্ষ প্রথমে মহাব্যবস্থাপক (বাণিজ্যিক) হাবিবুর রহমানকে প্রত্যাহার করলেও কিছুদিন পর মঙ্গলবার আবারো তাকে এ পদে বহাল করে কতৃপর্ক্ষ। সম্প্রতি নি¤œ মানের সার ও বস্তায় ওজন কম পাওয়া প্রমাণ পান জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি। বিষয়টি বিসিআইসি কতৃপর্ক্ষকে লিখিত ভাবে অবহিত করা হলেও তারা কোন ব্যবস্থা নেয়নি। তাই উপায় না পেয়ে গত বুধবার থেকে আশুগঞ্জ থেকে ৭ জেলার ডিলাররা সার উত্তোলন বন্ধ রাখে ডিলাররা। এতে করে কারখানার কমান্ড এরিয়াভুক্ত ব্রাক্ষণবাড়িয়া, কুমিল্লা, কিশোরগঞ্জ, হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা, চাঁদপুর জেলায় ৭৪৮ জন ডিলারের বরাদ্দকৃত সার উত্তোলন বন্ধ রাখে।
বিসিআইসির পরিচালক (কারিগরি) মোঃ আলী আক্কাস জানান, ডিলারদের অভিযোগে ভিত্তিতে মহাব্যবস্থাপক বানিজ্যিক হাবিবুর রহমানকে কারখানা থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। নি¤œমানের সার ও ওজনে কম দেয়ার বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সার সমিতির সভাপতি রুহুল আমিন ভূইয়া জানান, বিসিআইসি কতৃপর্ক্ষ ও কারখানা কতৃপর্ক্ষের সাথে বৈঠকে মহাব্যবস্থাপক (বাণিজ্যিক) হাবিবুর রহমানকে প্রত্যাহার করা ও ভাল মানের সার সরবরাহ ও সঠিক ওজনে সার সরবরাহের আশ্বাসে দেয়া ৭ জেলার ডিলাররা সার  উত্তোলন শুরু করেছে।


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০