শিরোনাম

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনা জেলা শাখার উদ্যোগে

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা উদযাপন শীর্ষক সেমিনার ও জেলা শাখার কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠিত

| রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | পড়া হয়েছে 178 বার

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা উদযাপন শীর্ষক সেমিনার ও জেলা শাখার কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠিত

শনিবার (২৪.০২.২০১৮) বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনা জেলা শাখার উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা উদযাপন শীর্ষক সেমিনার ও জেলা শাখার কাউন্সিল অধিবেশন-১৮ ব্রাহ্মণবাড়িয়া ইসলামিক সেন্টার মিলনায়তনে সকাল ১০ টায় ছাত্রসেনা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সভাপতি মোহাম্মদ রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা উদযাপন শীর্ষক সেমিনার ও কাউন্সিল অধিবেশনে উদ্বোধক ছিলেন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট জেলা সভাপতি পীরে তরিকত অধ্যাপক মুফতি নাজিম উদ্দিন আল-কাদরী।


প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের যুগ্ম-সাংগঠনিক সচিব আলহাজ্ব এড. মোহাম্মদ ইসলাম উদ্দিন দুলাল বলেন, ১৯৫২ সালে যখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজাক তরুণ ছাত্র রাষ্ট্র ভাষা বাংলা চাই শ্লোগান দিচ্ছিল তখন তারা যেন তাদের দাবি আদায়ে রাজপথে নেমে না আসতে পারে ১৪৪ ধারা জারি করে ছিল পুলিশ। কিন্তু মাতৃভাষার আন্দোলন থামাতে পারেনি। ছাত্ররা তাদের দাবি আদায়ে সকল বাধা অতিক্রম করে রাজপথে নেমে আসে। আর তখনি পুলিশ তাদের উপর নির্বিচারে গুলি করে। তখন শহীদ হন সালাম, বরকত, জাব্বার ও রফিক সহ নাম না জানা অনেক ভাষা আন্দোলনের রূপকার। তাদের দাবির পরিপেক্ষিতে ৯ মে গণপরিষদে বাংলাকে পাকিস্তানের অন্যতম রাষ্ট্রভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়। যার জন্য আজ জাতিসংঘ সহ বিশ্বের বহু দেশে ২১ ফেব্রুয়ারিকে ভাষা দিবস হিসেবে যথাযথ মর্যাদায় পালন করা হচ্ছে। কিন্তু যখন ফেব্রুয়ারি মাস আমাদের থেকে বিদায় নেই ঠিক তখনি আমরা ও যেন মায়ের ভাষা বাংলাকে বিদায় দিয়ে ফিরে যায় ইংজেদের ছায়াতলে। আমাদের মুখে ও কাজকর্মে আর মাতৃভাষা বাংলা থাকেনা। যার উজ্জল দৃষ্টান্ত হল ক্রমান্নয়ে ইংলিশ মিডিয়ামের স্কুল, কলেজ ও ইউনিভার্সিটি বৃদ্ধি ও দেশের শিক্ষায় ইংরেজীর উপর অধিক গুরুত্ব দেওয়া। তিনি আরো বলেন, ভাষা আন্দোলনের ৬৬ বছর হলেও আজো আমরা বাংলাকে পূর্ণাঙ্গ ভালবাসতে পারিনি। মাতৃভাষার ভালবাসা শুধু ফেব্রুয়ারি মাস কেন্দ্রীক হলে চলবে না, ভালবাসা হতে হবে সর্বময়। আমি যেমন আমার মাকে সর্বদা ভালবাসি ঠিক তেমনি মাতৃভাষাকে ও সর্বদা ভাল বাসতে হবে।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা উদযাপন শীর্ষক সেমিনার ও কাউন্সিল অধিবেশনে প্রধান আলোচক ছিলেন বাংলাদেশ ইসলামী যুবসেনা কেন্দ্রীয় পরিষদের অর্থ সম্পাদক যুবনেতা মাওলানা আবু নাছের মোহাম্মদ মুসা।

প্রধান আকর্ষন ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক পীরজাদা ড. মাসুম বিল্লাহ মিয়াজী।

বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট জেলা সহ-সভাপতি পীরে তরিকত আলহাজ্ব নূরুল ইসলাম আল-কাদরী, আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মহিউদ্দিন মোল্লা, সহ-সাধারণ সম্পাদক এড. সৈয়দ সায়েদুর রহমান আউলাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মিজানুর রহমান, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক পীরে তরিকত আলহাজ্ব মোস্তাক আহমদ আল ওয়ায়েসী, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক পীরে তরিকত ছৈয়দ জাফরুল কুদ্দুস গালেব, বাংলাদেশ ইসলামী যুবসেনা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সহ-সভাপতি মুফতি সায়েদুর রহমান রেজভী, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার অর্থ সম্পাদক মাওলানা সাইয়্যেদুজ্জামান জাবের, প্রচার সম্পাদক সৈয়দ আবুল বাশার, নাসিরনগর কচুয়া মিরানিয়া দরবার শরীফের গদিনেশিন পীরজাদা মাওলানা মুহাইমিনুল হক ইবনে জিয়াউল হক ও জেলা আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আতের দপ্তর সম্পাদক ক্বারী মাওলানা আবু রাইহান।

প্রধান বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনা কেন্দ্রীয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সংগ্রামী ছাত্রনেতা সৈয়দ মোহাম্মদ খুবাইব।

বিশেষ বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনা কেন্দ্রীয় পরিষদের গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক ছাত্রনেতা মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম নিজামী, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনা হবিগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পদক সৈয়দ মোহাম্মদ আলী।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা উদযাপন শীর্ষক সেমিনার ও কাউন্সিল অধিবেশনে জেলা সাধারণ সম্পাদক ছাত্রনেতা মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন শাহ বাবুলের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন জেলা সহ-সভাপতি সৈয়দ বাকি বিল্লাহ নুরী, সহ-সাধারণ সম্পাদক হাফেজ আতাউর রহমান মোল্লা, মোহাম্মদ আমান উল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার জোবায়ের আহমেদ রানা, অর্থ সম্পাদক মোহাম্মাদ আরিফ আহমেদ খান, সহ-অর্থ সম্পাদক হাফেজ শাহাত হোসাইন, প্রচার সম্পাদক মোহাম্মদ আবি তৈয়ব, শিক্ষা-প্রশিক্ষণ ও গবেষণা সম্পাদক মোহাম্মদ নূরে আলম রেজা, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ মাজহারুল ইসলাম রেজা , সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মোহাম্মদ উজ্জল হোসাইন, ছাত্রসেনা সদর উপজেলার সভাপতি মোহাম্মদ জাকির হোসাইন, ছাত্রসেনা সরকারি কলেজ শাখার সহ-সভাপতি হাফেজ বায়েজিদ আহমেদ, কসবা উপজেলা সভাপতি হাফেজ মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম, ছাত্রসেনা আশুগঞ্জ উপজেলার সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন, ছাত্রসেনা সরাইল উপজেলার সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ কাউছার উদ্দিন, নিয়াজ মোহাম্মদ লিংকন, মোহাম্মদ সবুজ আহমেদ, হাফেজ হেলাল উদ্দিন, কুতুব উদ্দিন, গোলাম মোস্তফা নয়ন, মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম রিফাত, মোহাম্মদ গোলজার আহমেদ, হাফেজ বাইজিদ আহমদ, হাফেজ উমর ফারুক, হাফেজ জাকারিয়া, মোহাম্মদ জুবায়ের সহ প্রমুখ।

কাউন্সিলে সর্বসম্মতিক্রমে মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন শাহ বাবুলকে সভাপতি, ইঞ্জিনিয়ার জোবায়ের আহমেদ রানাকে সাধারণ সম্পাদক ও মোহাম্মদ জাকির হোসাইনকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ৩৯ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়।-প্রেস বিজ্ঞপ্তি

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১