শিরোনাম

আদালত থেকে কারণ দর্শানোর নোটিশের পরও বন্ধ হচ্ছে না কাজ

মোঃ আব্দুল হান্নান,নাসিরনগর ব্রাহ্মণবাড়িয়া | বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯ | পড়া হয়েছে 330 বার

আদালত থেকে কারণ দর্শানোর নোটিশের পরও বন্ধ হচ্ছে না কাজ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলা সদর ইউনিয়নের বাজারের উত্তর পাশে লঙ্গন নদীর পাড়ে ব্যক্তি মালিকানাধীন নাসিরনগর মৌজার ১৯৬১ দাগের ৬২ শতাংশ ভূমি জনতা ব্যাংকের নিকট দায়বদ্ধ থাকার পরও উক্ত জায়গার উপর সরকারি ফিশিং ল্যান্ডিং ষ্টেশনের কাজ চলছে।

মঙ্গলবার (২৫-জুন ২০১৯ ) জায়গার মালিক কামরুল হোসেন চকদার বাদী হয়ে ঠিকাদার মেসার্স মোনালিসা এন্টারপ্রাইজ,উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া মৎস্য অধিদপ্তরের উপ পরিচালক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার ভূমি নাসিরনগরের নামে ব্রাহ্মণাবাড়িয়ার বিজ্ঞ সহকারী জজ নাসিরনগর আদালতে মামলা দায়ের করলে বিজ্ঞ আদালত ৭ দিনের থেকে কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদান করার পরও বন্ধ হচ্ছে না কাজ।


আইনকে বৃদ্ধাঙ্গলী প্রদর্শন করে চলছে ফিশিং ল্যান্ডিং ষ্টেশন এর কাজ। উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলামের সাথে তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি কিছুই জানি না। ইহা পিডির কাজ। পিডির মোবাইল নাম্বার চাইলে তিনি বলেন আমি এখন মিটিংয়ে ব্যস্ত আছি,এখন নাম্বার দেয়া যাবে না। বাদী পক্ষ দ্রুত কাজটি বন্ধ করতে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি ও হস্তক্ষেপ কামনা করছে।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১