শিরোনাম

অ্যাডঃ লুৎফুল হাই সাচ্চুর সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

স্টাফ রিপোর্টার : | বুধবার, ২২ নভেম্বর ২০১৭ | পড়া হয়েছে 359 বার

অ্যাডঃ লুৎফুল হাই সাচ্চুর সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, ৩নং সেক্টরের গেরিলা উপদেষ্টা, জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের বিশ্বস্ত রাজনৈতিক সহচর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর-৩ আসনের প্রয়াত সংসদ সদস্য, জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি অ্যাডঃ লুৎফুল হাই সাচ্চুর ৭ম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে অ্যাডঃ লুৎফুল হাই সাচ্চু স্মৃতি পরিষদ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আয়োজনে স্মরণসভা ও দোয়া মাহ্ফিল আজ বুধবার (২২.১১.২০১৭) বিকালে অ্যাডঃ লুৎফুল হাই সাচ্চুর মৌলভীপাড়াস্থ বাসভবনে অনুষ্ঠিত হয়।
03
স্মৃতি পরিষদের আহবায়ক, মুক্তিযুদ্ধকালিন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থান গেরিলা কমান্ডার ও জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা বীরমুক্তিযোদ্ধা আমানুল হক সেন্টুর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মোঃ শফিকুল আলম (এমএসসি)।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলার (কর বাহাদুর-পরিবার), জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি, সাবেক পৌর মেয়র মোঃ হেলাল উদ্দিন, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি, জেলা নাগরিক সমাজের সভাপতি আলহাজ্ব তাজ মোহাম্মদ ইয়াছিন, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মিসেস মিনারা আলম।
01
অতিথির বক্তব্য রাখেন মরহুম নেতার ছোট ভাই সাবেক যুগ্ম সচিব নাজমুল হাই সানী, মরহুম সাংসদের ভগ্নীপতি প্রকৌশলী সামছুল আলম, স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ এর কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ শাহজাহান আলম সাজু, ছোট ভাই মনোয়ারুল হাই (মামুন)।


সভায় বক্তব্য রাখেন সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা কামরুজ্জামান আনসারী, জেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি মোঃ কাউছার আহমেদ, জেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাড. শাহানুর ইসলাম, জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক ফরিদ উদ্দিন দুলাল প্রমুখ।

মনিরুল ইসলাম শ্রাবণের পরিচালনায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন জেলা যুবলীগ নেতা সাদাত মোঃ সায়েম, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফারহানা মিলি।

বক্তাগণ মরহুম নেতার স্মৃতি রক্ষায় তিতাস নদীর উপর নির্মিতব্য সেতুর নাম লুৎফুল হাই সাচ্চুর নামে নামকরণ করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবি জানান।

পরে মরহুম নেতার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করেন পোস্ট মসজিদের ইমাম মাওঃ মোঃ আব্দুল বাছির।

এর আগে সকালে স্মৃতি পরিষদ সহ বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে মরহুম নেতার গ্রামের বাড়ি সোহাতায় অবস্থিত মরহুমের কবর জেয়ারত ও কবরে ফুলেল শ্রদ্ধা জানানো হয়। এছাড়াও মরহুমের পরিবারের পক্ষ থেকে কোরআন খানি ও বিভিন্ন মসজিদে মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

উল্লেখ্য ২০১০ সালের ২২ নভেম্বর হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া গণমানুষের প্রিয় এই নেতা।

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১