শিরোনাম

অরক্ষিত অবস্থায় সরাইলের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার

সরাইল প্রতিনিধি: | সোমবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ | পড়া হয়েছে 404 বার

অরক্ষিত অবস্থায় সরাইলের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার

বাংলা ভাষার রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন থেকেই শুরু হয় আমাদের অধিকার আদায়ের সংগ্রাম। ৫২, ৬২, ৬৬, ৬৯ ও  ৭০’র নির্বাচনে জয় আসে ভাষা আন্দোলনের জয়কে পুঁজি করেই। সর্বশেষ ‘৭১ এর মুক্তিযুদ্ধে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর জাতি পায় স্বাধীন দেশ। বলা যায়, রাষ্টভাষা বাংলা থেকে পেয়েছি বাংলা ভাষার রাষ্ট্র।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে অরক্ষিত অবস্থায় পড়ে আছে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার। রবিবার সকালে  শহীদ মিনার এলাকায় ঘুড়ে দেখা যায় ময়লা আবর্জনা ,জুতা নিয়ে দারিয়ে থাকার কিছু দৃশ্য, দারিয়ে আচে কুকুর।
শহীদ মিনারের পেছনে গিয়ে দেখা স্বাধীনতাযুদ্ধে যারা নেতৃত্ব দিয়েছেন তাদের নাম লেখা একটি ফলক।  সামনে শহীদদের স্মরণে শত শত ফুলের ডালা দিয়ে শ্রদ্ধা জানালেও পেছনে  স্বাধীনতা যুদ্ধে যারা নেতৃত্ব দিয়েছেন তাদের নাম ফলকের দিকে ফিরেও তাকায় না কেউ।
শহীদ মিনারে জুতা নিয়ে উঠে পড়ার দৃশ্য নিত্যকার। শিক্ষিত মানুষ থেকে শুরু করে অশিক্ষিত মানুষ তো বটেই কুকুরও উঠে পড়ে শহীদ মিনারে। সবার চোখের সামনে এ ঘটনা ঘটলেও বাধা দেন না কেউই । প্রতিবছর ২১শ ফেব্রুয়ারি বিজয দিবস কে সামনে রেখে শহীদ মিনার ও তার আশপাশে এলাকায় পরিস্কার করা হয়ে থাকে । অথচ শহীদ মিনারের ঠিক পেছনে থাকা মুক্তি যুদ্ধাদের নাম লেখা  ফলক টির পাশেই মূত্র দ্বিধায় ত্যাগ করে এক শ্রেণির বিবেকহীন মানুষ।
এমনি একজনকে এ বিষয়ে জানতে চাইলে কিছুটা হতচকিত হয়ে তিনি বলেন, আশপাশে কোনো পাবলিক টয়লেট না থাকায় এখানে করছি। দেয়ালে থাকা নাম ফলক টি তিনি দেখেছেন কিনা জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, এখানে তো সবাই করে, তাই আমিও করছি।
এ বিষয়ে সরাইল পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আযুব খান বলেন, এটা আমাদের জন্য চরম লজ্জার। শহীদ মিনার  পুরো জাতীর আবেগ ও চেতনার স্থান। তাই এ বিষয়ে  কর্তৃপক্ষের নজর দেওয়া উচিত।
প্রস্রাব কারার এ দৃশ্য শুধু মাত্র শহীদ মিনার এলাকাতেই সীমাবদ্ধ নয়। উপজেলা পরিষদের  বিভিন্নেএলাকায এ দৃশ্য দেখা যায়।
উপজেলার এক কর্মকর্তা বলেন, প্রস্রাব করলে বাতাসে গন্ধ সরাসরি আমাদের অফিস রুমে চলে আসে। এতে আমাদের রুমে কাজ বেশ অসুবিধা হয় ।
কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও তার চারপাশের এলাকা এবং উপজেলা যত্রতত্র প্রসাব করার বিষয়ে সরাইল উপজেলা নিবার্হী কর্ম কর্তা সৈয়দা নাহিদা হাবিবা জানান, এ বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হবে। তিনি আরও বলেন, শহীদ মিনারের পেছনে  যাতে মানুষ প্রসাব না করে সে জন্য ব্যবস্থা নেয়া হবে ।


আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০